Terms & Condition for Dealer / Showroom / Depot

ডিলার নেওয়ার নিয়মাবলীঃ

সুবিধা সমূহঃ

০১. বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ ও পোশাকের প্রথম ডিলার সিস্টেম পরিচালিত পাইকারী কোম্পানী ব্লু-ড্রিম থেকে ডিলার নিয়ে আপনিও হতে পারেন একজন গর্বিত ব্লু-ড্রিমের সদস্য।

০২. জামানত বিহীন অর্থাৎ সিকিউরিটির জন্য কোন টাকা লাগে না তবে বাবদ এগ্রিমেন্ট ৪০ হাজার টাকা প্রদান করতে হবে।

০৩. নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী পোশাক বাছাই করে নিতে পারবেন যা আপনার ভালো লাগে।

০৪. রিজেক্ট পোশাক ফেরৎ দিতে পারবেন।

০৫. অনেক হাই কোয়ালিটির প্রোডাক্ট এবং কমিশন অনেক বেশি তাই খুব সহজেই সেলস করা যায়।

০৬. উন্নত মানের পোশাক হিসাবে অন্যান্য ব্র্যান্ড থেকে দাম অনেক কম।

০৭. সকল ফেব্রিক্স ও এক্সেসরিজ চায়না, তাইওয়ান সহ বিভিন্ন দেশের যা আনকমন ও ভিন্ন।

০৮. সকল পোশাক এক জায়গায় পাওয়া যায় তাই বিভিন্ন মার্কেটে ঘুরতে হয় না।

০৯. সকল পোশাকের কালার গ্যারান্টি সহ ব্যবহারের নিশ্চয়তা।

১০. পোশাক নিলেই কার্টুন, ডেলিভারি, লেবার, ভ্যাট সহ সকল প্রকার চার্জ ফ্রি।

১১. নিজেস্ব ফ্যাক্টরি, ইউনিক ডিজাইন ও ইমপোর্ট ফেব্রিক্সের জন্য আপনার মনের মত কোয়ালিটি পাবেন।

১২. সকল এক্সেসরিজ ইমপোর্ট ও হাই কোরালিটির যা বাংলাদেশে অন্য কোন ব্র্যান্ড এত বেশি দেয় না এবং প্রতিটা পন্যের সাথে পাবেন ব্যাগ ও বক্স ফ্রি।

১৩. পোশাক নিলেই মডেল ফটোশুট , ব্যানার ফেস্টুন, ক্যাটালগ বই, মেমো, খাম, ক্যালেন্ডার ইত্যাদি ফ্রি।

১৪. আধুনিক সিস্টেমে পাইকারি কোম্পানির মধ্যে আমরাই প্রথম পোশাকের ডিলার সিস্টেম চালু করি।

১৫. ব্লু-ড্রিম এত বেশি উপহার দেয় যা অন্য কো-পানি কল্পনাও করতে পারবেনা। যেমন- বাইক ফ্রিজ, এসি, এল.ই.ডি টিভি, কম্পিউটার, নগদ অর্থ ইত্যাদি।

১৬. ডিলারদের জন্য রয়েছে বিশাল মূল্য ছাড় ও বিভিন্ন সুবিধা যা ডিলার ব্যতীত অন্যরা পায় না।

১৭. ডিলার নিতে চাইলে দোকান বা স্পেস না থাকলেও চলবে, বাসা বা গোডাউনে রেখে পোশাক বিক্রয় করতে পারবেন।

১৮. প্রতি মাসে ৪ লাখ টাকার প্রোডাক্ট নিলে কোম্পানী থেকে ১ জন সেলসম্যানের স্যালারী দেওয়া হবে।

১৯. একটি থানাতে একটি ডিলার ও শো-রুম নিতে পারবেন এবং আপনি ছাড়া অন্য কেউ প্রোডাক্ট পাবে না।

২০. প্রতিদিন নতুন প্রোডাক্ট আসে তাই নিজ এলাকা থেকে কুরিয়ারের মাধ্যমে কন্ডিশন বা নরমালে অর্ডার দিতে পারবেন।

২১. সারা বছর ৫০ লক্ষ টাকার প্রোডাক্ট নিলে ৫% ক্যাশ ব্যাক পাবেন।

২২. ডিলার কনফার্ম করলে ভিজিটিং কার্ড, আইডি কার্ড, মেমো, প্রসপেক্টাস, স্টিকার, ব্যানার, ফেস্টুন, ক্যাটালগ বই ও যাবতীয় সব কিছু দেওয়া হবে।

২৩. ফ্রিতে গেস্ট হাউজে থাকা খাওয়া ও ঢাকার মধ্যে ট্রান্সপোর্ট সুবিধা পাবেন।

শর্তাবলীঃ

০১. ডিলার নিতে হলে সর্বনিম্ন ৫ লক্ষ টাকার প্রোডাক্ট নিতে হবে।

০২. কোন প্রকার ফেসবুক আইডি বা পেজ, ট্রেড লাইসেন্স, ওয়েব সাইট, ব্যাংক একাউন্ট ব্লু-ড্রিমের নামে খোলা যাবে না।

০৩. পর পর দুই মাস প্রোডাক্ট না নিলে ডিলারশিপ বাতিল বলে গন্য হবে।

০৪. প্রতি মাসে ১ লক্ষ টাকার প্রোডাক্ট নিতে হবে।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র :

০১. ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি।

০২. দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।

০৩. ট্রেড লাইসেন্স এর ফটোকপি।

০৪. নমিনির ২ কপি ছবি ও ভোটার আই.ডি কার্ডের ফটোকপি।

শো-রুম নেওয়ার নিয়মাবলীঃ

সুবিধা সমূহঃ

০১. শো-রুম সাজানোর যাবতীয় ব্যানার, প্যানা, ফেস্টুন, ভিজিটিং কার্ড, আইডি কার্ড, মেমো, খাম, প্রসপেক্টাস, বক্স, শপিং ব্যাগ ইত্যাদি ফ্রি প্রদান করা হবে।

০২. কোম্পানির সব আইটেমের প্রোডাক্ট দেওয়া হবে। যেমনঃ শার্ট, টি-শার্ট, পোলো টি-শার্ট, ডেনিম প্যান্ট, টুইল প্যান্ট, কার্গো প্যান্ট, পাঞ্জাবী, বেল্ট, ওয়ালেট, টু কোয়াটার, লেদার ব্যাগ, ট্যাঙ্ক টপ, কিডস ও লেডিস আইটেম ইত্যাদি।

০৩. সেলস্ বেশি হওয়ার জন্য মার্কেটিং সুবিধা প্রদান করা হবে ও সেলস্-ম্যান ও দেওয়া হবে। যার সেলারি কোম্পানী বহন করবে।

০৪. শো-রুমের জন্য আনকমন ও উন্নতমানের পোশাক দেওয়া হবে।

০৫. বছরে সেরা ৩ জন বিক্রেতাকে বাইক, ফ্রিজ ও এল.ই.ডি টিভি দেওয়া হবে।

০৬. সারা বছর ৬০ লক্ষ টাকার প্রোডাক্ট নিলে ৫% ক্যাশ ব্যাক পাবেন।

০৭. রিজেক্ট ও কালার নষ্ট হলে প্রোডাক্ট চেঞ্জ করে দেওয়া হবে।

০৮. শো-রুম রেডি থাকলে ৭ লাখ টাকার প্রোডাক্ট নিয়েও শো-রুম চালু করতে পারবেন।

০৯. একটি থানাতে একটি ডিলার ও শো-রুম নিতে পারবেন এবং আপনি ছাড়া অন্য কেউ প্রোডাক্ট পাবে না।

১০. জামানত বিহীন অথাৎ সিকিউরিটির জন্য কোন টাকা লাগে না তবে এগ্রিমেন্ট বাবদ ৫০ হাজার টাকা প্রদান করতে হবে।

১১. ফ্রিতে গেস্ট হাউজে থাকা খাওয়া ও ঢাকার মধ্যে ট্রান্সপোর্ট সুবিধা পাবেন।

শর্তাবলীঃ

০১. শো-রুমের এডভ্যান্স বা ভাড়া কোম্পানী বহন করবে না।

০২. শো-রুম ডেকোরেশন (সিলিং এবং রঙ) করে দেওয়া হবে যদি,

ক) ২০০ স্কয়ার ফিটের জন্য ১০ লাখ।

খ) ৫০০ স্কয়ার ফিটের জন্য ১৫ লাখ।

গ) ১০০০ স্কয়ার ফিটের জন্য ১৮ লাখ টাকার প্রোডাক্ট নেওয়া হয়।

০৩. থাই গ্লাস, লাইট বা হ্যাঙ্গার কোম্পানী থেকে দেওয়া হয় না।

০৪. শো-রুম মিনিমাম ২০০ স্কয়ার ফিট হলে ভালো হয় তবে কিছু কম হলেও অসুবিধা নাই।

০৫. প্রতি মাসে ২ লক্ষ টাকার প্রোডাক্ট নিতে হবে।

০৬. পর পর দুই মাস প্রোডাক্ট না নিলে শো-রুম বাতিল বলে গন্য হবে ।

০৭. কোন প্রকার ফেসবুক আইডি বা পেজ ট্রেড লাইসেন্স, ওয়েব সাইট, ব্যাংক একাউন্ট ব্লু-ড্রিমের নামে খোলা যাবে না।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র :

০১. ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি।

০২. দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।

০৩. ট্রেড লাইসেন্স এর ফটোকপি।

০৪. নমিনির ২ কপি ছবি ও ভোটার আই.ডি কার্ডের ফটোকপি।

ডিপো নেওয়ার নিয়মাবলীঃ

সুবিধা সমূহঃ

০১. একটি জেলায় ব্লু-ডিমের সকল প্রকার প্রোডাক্ট কেবল আপনাকেই দেয়া হবে। এবং আপনার মাধ্যমেই জেলার সকল ডিলার শো-রুম বা পাইকারী ক্রেতারা প্রোডাক্ট নিবেন।

০২. ডিলার, শো-রুমসহ সকল ক্রেতাদের থেকে কমিশন বেশি দেয়া হবে।

০৩. অফিসিয়াল ভাবে কোম্পানি থেকে গিয়ে উদ্ভোধন এবং মার্কেটিং করে দেয়া হবে।

০৪. ডিপো নিলেই পাচ্ছেন একটি হাই কনফিগারেশনের কম্পিউটার ও ২৫ ধরনের আইটেম একদম ফ্রি।

০৫. এক বছরের মধ্যে ২ কোটি টাকার প্রোডাক্ট নিলে পাচ্ছে একটি নতুন প্রাইভেটকার ( টয়োটা ব্র্যান্ডের) বা ১৫ লক্ষ টাকা উপহার।

০৬. এক বছরের মধ্যে ১.৫ কোটি টাকার প্রোডাক্ট নিলে পাচ্ছেন ১১ লক্ষ টাকা বা সমমান মূল্যের উপহার।

০৭. প্রতি মাসে ৮ লাখ টাকার প্রোডাক্ট নিলে ২ জন সেলস ম্যানের বেতন পাবেন কোম্পানি থেকে।

০৮. যদি কোন প্রোডাক্ট কম চলে বা রিজেক্ট হয় ১ মাসের মধ্যে পরিবর্তন করে অন্য প্রোডাক্ট নিতে পারবেন।

০৯. সকল আপডেট প্রোডাক্ট সবার আগে ডিপোতেই দেয়া হবে।

১০. ডিপো নিয়ে একসাথে নিতে পারবেন ছেলে, মেয়ে ও বাচ্চাদের সকল পোশাক।

১১. ডিপো নিলে সেই জেলাতে যত শোরুম ও ডিলার ও পাইকারি কাস্টমার আছে সব আপনার আন্ডারে বুঝিয়ে দেওয়া হবে।

১২. ডিপো নিলে ব্লু ড্রিমের গেস্ট হাউসে থাকা ও খাওয়া একদম ফ্রি।

১৩. ব্লু ড্রিমের নিজস্ব ট্রান্সপোর্টের মাধ্যমে ঢাকার মধ্যে যাতায়াতের সুব্যবস্থা আছে।

১৪. ডিপো নিলে ডিলার, শো-রুম এবং পাইকারীদের থেকে বেশি কমিশন থাকে।

শর্তাবলীঃ

০১. একটি জেলাতে একজনকেই ডিপো দেয়া হবে।

০২. ডিপো নিতে চাইলে মিনিমাম ২০ লাখ টাকার প্রোডাক্ট নিলে ডিপো দেয়া যাবে। তবে জেলায় কয়টি থানা বা উপজেলা আছে সেটার উপর বিবেচনা করে টাকা নির্ধারন করা হবে।

৩। জামানত বিহীন অথাৎ সিকিউরিটির জন্য কোন টাকা লাগে না তবে এগ্রিমেন্ট বাবদ ৫০ হাজার টাকা প্রদান করতে হবে।

০৪। ডিপো স্থায়ীভাবে বুকিং দিতে বুকিং দিতে হলে সেক্ষেত্রে নূন্যতম ৫ লাখ টাকা দিয়ে বুকিং দিতে হবে এবং সর্বোচ্চ ২০ দিনের মধ্যে পুরো টাকা দিয়ে চুক্তিপত্র বুঝে নিতে হবে।

০৫। প্রতি মাসে নুন্যতম ৫ লাখ টাকার প্রোডাক্ট নিতে হবে।

০৬। কোন প্রকার ফেসবুক আইডি বা পেজ, ট্রেড লাইসেন্স, ওয়েব সাইট, ব্যাংক একাউন্ট ব্লু-ডিমের নামে খোলা যাবে না।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র :

০১. ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি।

০২. দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।

০৩. ট্রেড লাইসেন্স এর ফটোকপি।

০৪. নমিনির ২ কপি ছবি ও ভোটার আই.ডি কার্ডের ফটোকপি।

BLUE DREAM Group

Head Office

House - C/1, Road - 2/1, Near Mirpur Model Thana, Mirpur-2, Dhaka - 1216, Bangladesh.

Call us

+8802-48040850,

+880 1996-598929

Email us

info@bluedreamgroup.com 

Bluedream1216@gmail.com